Friday , January 27 2023
Breaking News
Home / Countrywide / বিএনপির সমাবেশের জন্য সোহরাওয়ার্দী ছাড়াও দুটি স্থানের প্রস্তাব ডিএমপির

বিএনপির সমাবেশের জন্য সোহরাওয়ার্দী ছাড়াও দুটি স্থানের প্রস্তাব ডিএমপির

আগামি ১০ ডিসেম্বর ঢাকায় বিএনপি সমাবেশের ঘোষনা দিয়েছে, কিন্তু সেই সমাবেশের স্থান নিয়ে বড় ধরনের সমস্যার মুখে পড়েছে বিএনপি। কারণ বিএনপি পল্টনে সমাবেশ করতে চাইলেও সেখানে সমাবেশ করার অনুমতি দেয়নি ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ। তবে সমাবেশ করার ঘোষনা দেওয়া তারিখ ১০ ডিসেম্বরের আর মাত্র তিনদিন বাকি রয়েছে। এখনও বিএনপি কোথায় সমাবেশ করবে সে বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্তে আসতে পারেনি। এদিকে এবিষয়ে আজ কথা বলেছেন ডিএমপির মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশন্স বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) মো. ফারুক হোসেন।

রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ছাড়াও বিএনপির সমাবেশের জন্য আরও দুটি স্থান প্রস্তাব করেছে পুলিশ। বিএনপি চাইলে আগামী ১০ ডিসেম্বর টঙ্গীর বিশ্ব ইজতেমা মাঠে বা পূর্বাচল আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলার মাঠে সমাবেশ করতে পারে। এ ক্ষেত্রে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) কোনো আপত্তি থাকবে না।

মঙ্গলবার দুপুরে মো. ফারুক হোসেন নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, বিএনপি যদি রাস্তা বাদ দিয়ে খোলা মাঠ খোঁজে, তাহলে টঙ্গীর বিশ্ব ইজতেমা মাঠ বা পূর্বাচলে আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলার মাঠেও সমাবেশ করতে পারে। ডিএমপির কোনো আপত্তি থাকবে না।

জেলা প্রশাসক ফারুক হোসেন জানান, ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) ১০ ডিসেম্বর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের অনুমতি দিয়েছে। অনুমতি দেওয়ার পরও তারা ডিএমপি কমিশনারের সঙ্গে দেখা করে বিকল্প ভেন্যুর প্রস্তাব দিয়েছিলেন। আরামবাগে বিকল্প ভেন্যু করার জন্য মতিঝিল বিভাগের ডিসিকে বিএনপির পক্ষ থেকে প্রস্তাব দেওয়া হয়। প্রস্তাবটি আনুষ্ঠানিকভাবে ডিএমপি কমিশনারের কাছে আসেনি।

ডিসি আরও বলেন, তবে বিকল্প কোনো ভেন্যু ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের পক্ষ থেকে চিন্তা করা হয়নি। সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে অনুমতি দেওয়ায় এখন পর্যন্ত ডিএমপি ওই অবস্থানেই রয়েছে। ডিএমপি কোনো রাস্তার ওপরে করার জন্য অনুমতি দেবে না।

১০ ডিসেম্বর বিএনপির সমাবেশকে ঘিরে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি রক্ষায় ডিএমপি প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিয়েছে বলেও উল্লেখ করেন এই পুলিশ কর্মকর্তা।

সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ করতে না চাওয়ার কোনো কারণ বিএনপি বলেছে কি না জানতে চাইলে ডিসি ফারুক হোসেন বলেন, তারা নিরাপত্তার হুমকি বোধ করছেন বলে জানা গেছে। তবে সমাবেশে আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে রাখতে প্রয়োজনীয় সব ধরনের পুলিশি সহায়তার আশ্বাস দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে ডিএমপি।

তবে বিএনপি উচিৎ ৩ দিন বাকি থাকতে সমাবেশের স্থান ঠিক করা এমনটি জানিয়েছেন দলটির একাধিক নেতা। কারন হিসেবে জানিয়েছেন, সমাবেশে সারা দেশ থেকে নেতাকর্মীরা আসতে পারে সেক্ষেত্রে তাদের স্থান বিষয়ে নির্দিস্ট করলে তাদের জন্য সুবিধা হবে। এদিকে নেতাকর্মীদের মাঝেও এই সমাবেশ নিয়ে নানা পরিকল্পনা করে যাচ্ছেন বলে মনে করছেন তারা

About bisso Jit

Check Also

সারা দেশের ডিসিদের সতর্ক থাকার নির্দেশ, জানা গেল কারণ

বাংলাদেশের রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট এমন যেখানে এক দল অন্য দলের সমালোচনায় মত্ত রয়েছে। নানা সময় অন্যদলের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *