Friday , January 27 2023
Breaking News
Home / Countrywide / এবার যুদ্ধ জয়ের জন্য তিন বাহিনীর প্রধানকে প্রস্তুত থাকতে বললেন প্রধানমন্ত্রী

এবার যুদ্ধ জয়ের জন্য তিন বাহিনীর প্রধানকে প্রস্তুত থাকতে বললেন প্রধানমন্ত্রী

বাংলাদেশ কখনোই কারোর সাথে যুদ্ধে জড়াতে চায় না।কারন দেশটি শান্তি চায়। তবে কোনো কারণ বসত কারোর সাথে যুদ্ধে জড়িয়ে পড়লে সেই যুদ্ধে জিততেই হবে বলে এবার জানিয়ে দিলেন দেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।এ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বাংলাদেশ কারও সঙ্গে যুদ্ধে জড়াতে চায় না, যুদ্ধে জড়ালে জয়ের জন্য তিন বাহিনীকে প্রস্তুত থাকতে হবে। ফোর্সেস গোল ২০৩০ প্রণয়নের মাধ্যমে সশস্ত্র বাহিনীর আধুনিকায়নের কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, দেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব রক্ষায় সর্বদা সজাগ থাকতে হবে।

বৃহস্পতিবার চট্টগ্রামে বাংলাদেশ নেভাল একাডেমির রাষ্ট্রপতির কুচকাওয়াজে সরকার প্রধান এ কথা বলেন।

নতুন কমিশন পাওয়া নৌবাহিনীর তরুণ কর্মকর্তাদের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “দেশের সার্বভৌমত্ব রক্ষায় আপনারা নৌবাহিনীর মেরুদণ্ড। স্বাধীনতা ও বিপর্যয় রক্ষায় সর্বদা প্রস্তুত থাকতে হবে। আমি চাই নতুন কর্মকর্তারা। এ ব্যাপারে আন্তরিকভাবে কাজ করতে হবে।সব সময় শৃঙ্খলাবদ্ধ থাকতে হবে।

একই সঙ্গে অভিভাবকদের অভিনন্দন জানাই। শিশুরা মাতৃভূমির সেবায় নিয়োজিত। আজ কমিশন পাওয়ার জন্য আমি আপনাকে অভিনন্দন জানাই।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমাদের পররাষ্ট্রনীতি পরিষ্কার। আমরা কারো সাথে যুদ্ধ করব না। কিন্তু আমরা স্বাধীন দেশ। দেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্ব রক্ষায় সব ধরনের প্রস্তুতি নিতে হবে। ঈশ্বর না করুন, আমরা যদি কখনও যুদ্ধে জড়িয়ে পড়ি, তবে তিনটি বাহিনীকেই প্রস্তুত থাকতে হবে যাতে আমরা জয়ী হতে পারি।’

প্রধানমন্ত্রী সশস্ত্র বাহিনীকে আধুনিকায়নে আওয়ামী লীগ সরকারের উদ্যোগের কথাও তুলে ধরেন। তিনি বলেন, “আমরা ১৯৯৬ সাল থেকে নৌবাহিনীর আধুনিকীকরণের জন্য কাজ করছি। ফোর্সেস গোল ২০৩০ প্রণয়ন এবং এটি বাস্তবায়ন। নৌবাহিনীতে মোট ৩৬ টি যুদ্ধজাহাজ যোগ করুন। বিমান চলাচল শাখা প্রতিষ্ঠা করুন। দুটি সাবমেরিন যুক্ত করে নৌবাহিনী একটি ত্রিমাত্রিক বাহিনীতে পরিণত হয়েছে।

“আমরা আমাদের নিজস্ব জাহাজ তৈরি করছি। নৌবাহিনী একটি ক্রয় শক্তি থেকে একটি উত্পাদন শক্তিতে পরিণত হতে চলেছে৷

নৌবাহিনীর প্রশংসা করে বঙ্গবন্ধুকন্যা বলেন, “নৌবাহিনীর সদস্যরা অনেক বিপজ্জনক স্থানে দায়িত্ব পালন করছেন। কর্ণফুলী টানেলের নিরাপত্তা নৌবাহিনীকে দেওয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গত, এর আগেও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের জন্য সর্বদা সবাইকে প্ৰস্তুত থাকতে বলেছেন। বিশেষ করে দেশের সব বিহিনীকে বলেছেন যে কোনো পরিস্থিতির জন্য যেন তারা সব সময় প্রস্তুত থাকেন।

About Rasel Khalifa

Check Also

সারা দেশের ডিসিদের সতর্ক থাকার নির্দেশ, জানা গেল কারণ

বাংলাদেশের রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট এমন যেখানে এক দল অন্য দলের সমালোচনায় মত্ত রয়েছে। নানা সময় অন্যদলের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *